দেশের চলচ্চিত্রে সানি লিওনকে নেয়া নিয়ে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া

দেশের চলচ্চিত্রে  সানি লিওনকে নেয়া নিয়ে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া

ছবি সংগৃহিত।

বাংলাদেশের একটি চলচ্চিত্রের আইটেম গানে পারফর্ম করবেন বলিউডের বিতর্কিত এবং এক সময়ের পর্নোতারকা সানি লিওন। সিনেমাটির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান শাপলা মিডিয়ার কর্ণধার সেলিম খান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘বিক্ষোভ’ নামের একটি সিনেমার জন্য সানি লিওনকে নেয়া হয়েছে। মূলত প্রেক্ষাগৃহে দর্শক বাড়াতেই এমন উদ্যোগ নিয়েছি। তিনি বলেন, দেশে ভালো সিনেমা হচ্ছে না, ভালো শিল্পীর অভাব, তাই দর্শক প্রেক্ষাগৃহে যায় না। এ কারণে সানিকে নেওয়া।’ কিন্তু সানির ভাবমর্যাদা খোদ বলিউডেই বিতর্কিত, সেখানে বাংলাদেশের দর্শক তাকে কীভাবে গ্রহণ করবে বা তাকে সিনেমায় কীভাবে উপস্থান করা হবে এমন প্রশ্নের জবাবে এই প্রযোজকের দাবি, সানিকে পর্দায় শালীনভাবেই উপস্থাপন করা হবে। তাছাড়া দর্শকতো সানির অভিনয়ের সঙ্গে পরিচিত, কোনো সমস্যা হবে না। সেলিম খানের এমন বক্তব্যে এখন সমালোচনার ঝড় উঠেছে। বিষয়টি নিয়ে সেন্সর বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান নিজামুল কবীরের দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনি বলেন, ‘আপনাদের কাছ থেকেই বিষয়টি জানলাম। এটা স্পর্শকাতর বিষয়। আপনাদের নিশ্চয়ই মনে আছে সানির সঙ্গে ফেরদৌস ভাই অভিনয় করছেন এমন সংবাদে তিনি বেশ কঠোর প্রতিবাদ করেছিলেন। শেষ পর্যন্ত সেই প্রজেক্ট হয়নি। এবারের প্রজেক্টে প্রযোজক কিভেবে তাকে নিচ্ছেন সেটা তিনিই বলতে পারবেন। তবে তা সত্য হলে বাংলাদেশের দর্শক আদৌ অপরিচ্ছন্ন ভাবমর্যাদার একজন শিল্পীকে গ্রহণ করবে কিনা সেটা সেন্সরবোর্ডের বিজ্ঞ সদস্যরা অবশ্যই ভাববেন। সেলিম খানের ‘সানিকে নিলে দর্শক বাড়বে’ এমন বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, ‘এটা ঠিক না। ভালো গল্পই পারে প্রেক্ষাগৃহে দর্শক আনতে। অতীতেও আমরা সেটাই দেখেছি। তবে সানিকে নিয়ে শুটিং করা হলে এবং তাকে কীভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে তা সেন্সরবোর্ডের সবাই মিলে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’ প্রযোজক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু বলেন, ‘নিয়ম নীতি আর রুচিবোধ ঠিক রেখে যদি সানিকে উপস্থাপন করা হয় তাহলে সমস্যা দেখি না।’ এ ব্যাপারে নির্মাতা চলচ্চিত্র অভিনেত্রী অরুণা বিশ^াস বলেন, বলিউডে সানি লিওনির এমন কোনো স্বচ্ছ অবস্থান নেই যে আমাদের দেশের দর্শক তাকে দেখতে টিকিট কাটবে।

রাখী বা সানিদের চাহিদা একটা শ্রেণির কাছে যারা কেবল ওদের বিতর্কিত ব্যাপারটা নিয়ে হৈ চৈ করে। আর আমরা যদি তার সেই আবেদনটাকে পুঁজি করি তাহলেতো সুস্থধারার দর্শক আসবেই না বরং এতে প্রেক্ষাগৃহ বিমুখতা দেখা দিবে। এটাতো রীতিমত বুমেরাং হবে আমাদের জন্য। তিনি বলেন, আমাদের দেশেই এখন অনেক সুন্দর রুচিসম্পন্ন ছেলে-মেয়ে রয়েছে যারা খুব সুন্দর নাচতে পারে তাদেরকে বেশি করে সুযোগ দেওয়া উচিত। একজন পেশাদার প্রযোজক হিসেবে এটাই করা উচিত।’ পরিচালক সমিতির মহাসচিব বদিউল আলম খোকন বলেন, সব নিয়ম নীতি ঠিক রেখে পরিচ্ছন্নভাবে যদি সানিকে উপস্থাপন করা হয় তবে আপত্তির কিছু নেই। তবে ব্যক্তিগতভাবে আমি একটা কথা বলতে চাই, ‘একজন সানি লিওনিকে নিতে যে পরিমান টাকা খরচ হবে তার অর্ধেক দিয়ে আমাদের শিল্পীদের নেয়া যায়। যদিও এটা পরিচালক-প্রযোজকের একান্ত বিষয়। একজন সানিকে দেখে হলে দর্শক উপচে পড়বে প্রযোজকের এমন কথার ভিত্তি আমি দেখছি না।’ নাম প্রকাশ না করার শর্তে শিল্পী সমিতির একাধিক অভিনেত্রী বলেছেন, ‘সানি লিওনকে নিলে শিল্পী সংকট কমবে দর্শক বাড়বে এ কথার অর্থ প্রযোজক পেশাদারিত্বের বদলে অপসংস্কৃতিকে বেছে নিয়েছেন। উল্লেখ্য, সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি মুম্বাইয়ে গানটির শুটিংয়ে অংশ নেবেন সানি লিওনি। গানটির নৃত্য পরিচালনা করবেন ভারতের বব ও পাবন। সিনেমাটি নির্মাণ করবেন শামীম আহমেদ রনী। ইতোমধ্যে এতে অভিনয়ের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন কলকাতার অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টেপাধ্যায়। এতে রজতাভ দত্ত, অমিত হাসানসহ আরও অনেকে অভিনয় করবেন।

 

ad