Islam

ইসলামে প্রবীণদের অধিকার ও মর্যাদা

ইসলামে প্রবীণদের অধিকার ও মর্যাদা

সমাজ ও সভ্যতার কেন্দ্রবিন্দু হলো পরিবার। সাধারনত পরিবারে তিন শ্রেণীর সদস্য থাকেন। প্রথম হলো- স্বামী – স্ত্রী, দ্বিতীয়ত হলো- সন্তান-সন্ততি এবং তৃতীয়ত হলো- বৃদ্ধ পিতা-মাতা। পরিবারের এসব বৃদ্ধ বা প্রবীণ সদস্যগণ তাদের ভরন –পোষণ ও সেবা- শুশ্রুষার জন্য কারো না কারো ওপর বিশেষ করে সন্তানদের ওপর নির্ভশীল থাকেন।

রাসূল (সা.) এর দাওয়াতী জীবন : মুসলিম উম্মাহর করণীয়

রাসূল (সা.) এর দাওয়াতী জীবন : মুসলিম উম্মাহর করণীয়

শিশুকাল থেকেই  মুহাম্মদ (সা.) ছিলেন একজন ব্যতিক্রম বালক। কথা-বার্তা, চাল-চলন, আচার-ব্যবহারে তিনি উত্তম আদর্শবান হিসেবে গড়ে উঠেছিলেন। ছোট বেলায় তাঁর দাদা বড় বড় মজলিসে মুহাম্মদ (সা.) কে নিজ চাদরের উপর বসাতেন। আরবের কুরাইশ নেতাদের সামনে তাঁকে সাইয়েদ বা নেতা বলে ডাকতেন।

মুত্যু এক অনিবার্য সত্য : আমাদের করণীয়

মুত্যু এক অনিবার্য সত্য : আমাদের করণীয়

মৃত্যু কি? মৃত্যু হলো এই জাগতিক জীবনের পরিসমাপ্তি। মৃত্যু হলো আত্মা ও দেহের সম্পর্ক ছিন্ন করে আত্মাকে অন্যত্র স্থানান্তর করার নাম। আর আত্মার এ স্থানান্তরের সাথে সাথেই শুরু হয় পরপারের যাত্রা। এর মধ্য দিয়েই দুনিয়ার জীবনের অবসান ঘটে।

ইসলামে সমাজসেবা

ইসলামে সমাজসেবা

সামাজিক জীবন মানষের জন্য বিকল্পহীন। জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত একে অন্যের পাশে দাঁড়িয়েই মানুষ এখানে বসবাস করে।

হাজ্জের গুরুত্ব ও তাৎপর্য

হাজ্জের গুরুত্ব ও তাৎপর্য

একজন মুসলিমকে কিছু সময়ের জন্য রহমানের মেহমান হওয়ার পরম সৌভাগ্য আর সদ্য প্রসূত শিশুর মত পাপমুক্ত জীবনের প্রতিশ্রুতি দেয় যে মহান ইবাদাত, সেটিই হাজ্জ, হাজ্জ মাবরূর।

ইসলামে উত্তম চরিত্র

ইসলামে উত্তম চরিত্র

ইসলাম মানুষকে একটি শাশ্বত জীবনবোধ দিয়েছে। এই জীবনদর্শনের বিশিষ্টতা মুসলিম জীবনের সবচেয়ে বড় সম্পদ। এ জন্য সৎ চরিত্রকে মানবজীবনের সবচেয়ে মূল্যবান সম্পদ বলা হয়ে থাকে।

‘খিলাফত আন্দোলন’ আসছে তুরস্ক ও পাকিস্তানের যৌথ উদ্যোগে

‘খিলাফত আন্দোলন’ আসছে তুরস্ক ও পাকিস্তানের যৌথ উদ্যোগে

১৯২০ সালে ব্রিটিশ শাসিত ভারতীয় উপমহাদেশের মুসলমানদের খিলাফত রক্ষার জন্য আন্দোলনকে নিয়ে তুরস্ক ও পাকিস্তানের যৌথ উদ্যোগে একটি চলচ্চিত্র নির্মাণ করা হবে। 

ইবরাহীম আ: ও হজ

ইবরাহীম আ: ও হজ

মহানবী সা: বলেছেন, হজরত আদম আ: ও হজরত হাওয়া আ: পৃথিবীতে আগমনের পর আল্লাহ তায়ালা হজরত জিবরাইল আ:-এর মাধ্যমে তাঁদের কাবাগৃহ নির্মাণের আদেশ দেন।